গীতিকার কে জি মোস্তফার মৃত্যুতে তথ্যমন্ত্রীর শোক

142
গীতিকার কে জি মোস্তফার মৃত্যুতে তথ্যমন্ত্রীর শোক
গীতিকার কে জি মোস্তফার মৃত্যুতে তথ্যমন্ত্রীর শোক

‘তোমারে লেগেছে এতো যে ভালো চাঁদ বুঝি তা জানে’, ‘আয়নাতে ওই মুখ দেখবে যখন’সহ অসাধারণ সব গানের গীতিকার এবং বিসিএস তথ্য ক্যাডারের সাবেক কর্মকর্তা কে জি মোস্তফার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

রোববার রাতে রাজধানীর একটি হাসপাতালে ৮৫ বছর বয়সে কে জি মোস্তফা মারা যান। তার মৃত্যু সংবাদে শোকাহত মন্ত্রী প্রয়াত এই সৃষ্টিশীল কর্মপ্রতিভার আত্মার শান্তিকামনা করেন এবং তার শোকাহত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ তার শোকবার্তায় বলেন, কে জি মোস্তফা একজন সুশীল সেবক ও খ্যাতিমান সাংবাদিক ছিলেন। তার রচিত যেসব গান দশকের পর দশক মানুষের মনে জাগরুক হয়ে আছে সেই জনপ্রিয় সব গানের মধ্য দিয়ে তিনি অমর হয়ে থাকবেন।

১৯৩৭ সালের ১ জুলাই নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে জন্মগ্রহণকারী খন্দকার গোলাম মোস্তফা ১৯৭৬ সালে বিসিএস তথ্য ক্যাডারের অফিসার হিসেবে চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদফতরে সহকারী সম্পাদক পদে যোগ দেন এবং সিনিয়র সম্পাদক হিসেবে ১৯৯৬ সালে অবসরে যান।

এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জনের পর কে জি মোস্তফা নামে লেখালেখি শুরু করেন। ইত্তেহাদ, সংবাদ, জনপদসহ কয়েকটি পত্রিকায় তিনি সাংবাদিকতা করেন।
১৯৬০ সাল থেকে গানের পাশাপাশি গদ্য ও পদ্য চর্চা করে গেছেন তিনি। চলচ্চিত্র, বেতার এবং টেলিভিশনের হাজার গানের গীতিকার, কাব্য ও গদ্যগ্রন্থ প্রণেতা কে জি মুস্তাফা।