গাজীপুরে যুবক খুন, গ্রেপ্তার-৩

86
গাজীপুরে যুবক খুন, গ্রেপ্তার-৩
গাজীপুরে যুবক খুন, গ্রেপ্তার-৩

আব্দুর রহমান,গাজীপুর: গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলায় গবাদি পশুর খামারের দুধ বিক্রির পর চুরি করা টাকার ভাগ না দেয়ার দ্বন্দ্বে রিয়াজ উদ্দিন নামের এক রাখাল খুনের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে তিনসহকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে গাজীপুরের পিবিআই।

ভিক্টিম রিয়াজ উদ্দিন (৩৫), গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার জামালপুর হাজীপাড়া এলাকার মোঃ নাজিম উদ্দিনের ছেলে। তিনি স্থানীয় ফুলদি এলাকার ছাইফ এগ্রোফার্মের রাখাল হিসেবে চাকুরি করতেন। গ্রেপ্তাররা হলো মোঃ আজিজুল হক (২০), ইয়াছিন মিয়া (৩৯) ও মোঃ আবির (১৬) তাদের সকলের বাড়ি নরসিংদী এলাকায়। তারা তিনজনই একই ফার্মে রাখাল পদে চাকুরি করেন।

গাজীপুরের পিবিআই’র উপ-পুলিশ পরিদর্শক মোঃ জামাল উদ্দিন বুধবার জানান, মোঃ ইয়াসিন মিয়া ফার্মে দুধ বিক্রি থেকে শুরু করে ফার্মের যাবতীয় কাজকর্ম দেখাশুনার দায়িত্বে ছিল। মোঃ ইয়াছিন প্রতিদিন স্থানীয় ফুলদী বাজারে ছাইফ এগ্রোফার্মের দুধ বিক্রি করতেন। তিনি প্রতিদিন দুধ বিক্রির টাকা থেকে ১০০/১৫০ টাকা গোপনে রেখে দিতেন। ইয়াসিন একদিন ভিকটিম রিয়াজ উদ্দিনকে নিয়ে দুধ বিক্রি করতে গেলে রিয়াজ উদ্দিন টাকা রেখে দেয়ার বিষয়টি জেনে যায়।

এরপর ভিক্টিম রিয়াজও ইয়াসিন মিয়ার চুরি করা টাকার অর্ধেক ভাগ চায়। টাকার ভাগ না দিলে রিয়াজ বিষয়টি ফার্মের মালিককে জানিয়ে দিবে বলে ইয়াসিন মিয়াকে হুমকি দেয়। এনিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়াও হয়। পরে গ্রেপ্তারকৃতরা রিয়াজকে হত্যার পরিকল্পনা করে। তাদের পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০২০সালের ২৮জুন বিকেল ৪টার দিকে ইয়াসিন মিয়াসহ অন্য কয়েক সহকর্মী রিয়াজ উদ্দিনকে সঙ্গে নিয়ে খামারের পাশেই বিলের মধ্যে হাঁস আনার জন্য যায়।

এসময় দুইজন সহকর্মী বিলের পাড়ে দাঁড়িয়ে পাহারা দেয়। পানিতে নেমে কিছুদুর যাওয়ার পর মোঃ ইয়াসিন মিয়ার হাতে থাকা কাঠের লাঠি দিয়ে রিয়াজের মাথায় ৩/৪ টা আঘাত করলে রিয়াজ উদ্দিন পানিতে ডুবে যায়। পরে ইয়াসিন তার সহযোগী মোঃ আজিজুল ও মোঃ আবিরের কাছে ফার্মে ফিরে গিয়ে ফার্মে থাকা সিকিউরিটি গার্ড ও অন্যান্য লোকদের কাছে প্রচার করে যে রিয়াজ উদ্দিন পানিতে ডুবে গিয়েছে। পরে ইয়াসিন মিয়া ও অন্যান্য লোকজন বিলের পানিতে তল্লাশী চালিয়ে রিয়াজ উদ্দিনকে বিলের মধ্যে পানির নিচে হতে উদ্ধার করে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রিয়াজ উদ্দিনকে মৃত্যু ঘোষনা করেন।

এ ব্যাপারে কালীগঞ্জ থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়। পরবর্তীতে ময়নাতদন্তে মাথায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেলে আদালত এবছরের ১৬এপ্রিল মামলাটির তদন্তভার দেয় গাজীপুরের পিবিআই’র উপর। পরে পিবিআই গোয়েন্দা তৎপরতা চালিয়ে ও আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে ওই তিনজনকে গ্রেপ্তার করে।