খাগড়াছড়িতে জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল প্রতিনিধি সভা

খাগড়াছড়িতে জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল প্রতিনিধি সভা
খাগড়াছড়িতে জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল প্রতিনিধি সভা

বিপ্লব তালুকদার, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি : আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ এমপি পার্বত্য চট্টগ্রামে স্থায়ী শান্তি ও উন্নয়নের স্বার্থে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়েছেন। তিনি রোববার দুপুরে খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত আওয়ামীলীগের তৃণমূল প্রতিনিধি সমাবেশে বলেন, পাহাড়ে উন্নয়নের জোয়ার বইছে। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সরকার কাজ করছে। তিনি পার্বত্য চট্টগ্রামে অবৈধ অস্ত্র বহনকারী বিপদগামীদের উদ্দেশে তিনি বলেছেন, অবৈধ অস্ত্র হাতে রেখে শান্তি আনয়ন সম্ভব নয়। অস্ত্র পরিহার করুন। তবেই এখানে শান্তির সুবাতাস বইবে।

রোববার দুপুরে খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজ মাঠ খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যন্যের মাঝে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি দীপংকর তালুকদার এমপি, জাতীয় সংসদের হুইপ এবং কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, কেন্দ্রীয় ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সিরাজুল মোস্তফা এমপি এবং কেন্দ্রীয় আ.লীগের উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম।

খাগড়াছড়িতে জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল প্রতিনিধি সভা

এ সময় মাহাবুবুল আলম হানিফ আওয়ামীলীগ সরকারের টানা মেয়াদে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু, কর্ণফুলি টানেল, পায়রা সমুদ্র বন্দর, মেট্রোরেলসহ বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের কথা তুলে ধরেন। বলেন, এসব উন্নয়ন বিএনপি-জামাত চোখে দেখে না। তারা শুধু ষড়যন্ত্র ও মিথ্যাচার করেন। বর্তমানে দেশের মানুষের আয় বেড়েছে। নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য কেনার পরও টাকা সঞ্চয় করতে পারছে।

বিএনপি-জামাত একই মায়ের সন্তান। এরা সাফল্যতায় বিশ্বাস করে না। রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকাকালীন তারা দেশকে পিছিয়ে দিয়েছিলো। এখনও ষড়যন্ত্র করছে। বিএনপির আমলে ২৬ হাজার আ.লীগ নেতাকর্মী নিহত হয়েছে। খালেদা জিয়ার হাত রক্তে রঞ্জিত মন্তব্য করে হানিফ বলেন, তিনি আজ গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার আন্দোলন করছেন।

প্রধান বক্তা হিসেবে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেছেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে যেসব উন্নয়ন হয়েছে তা দৃশ্যমান। উন্নয়নের সরকার মানেই শেখ হাসিনার সরকার। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার দেশকে উন্নয়ন ও অগ্রগতির পথে এগিয়ে নিতে কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, এই বাংলাদেশের জন্যই ৩০লক্ষ মানুষ মুক্তিযুদ্ধের শহীদ হয়েছেন, রক্ত দিয়েছেন।এই রক্তের সুফল সারাদেশের ন্যায় পার্বত্য জেলাগুলোও ভোগ করছে। আপনার এগিয়ে যান প্রিয় খাগড়াছড়িবাসী, আমরা আপনাদের অনুসরণ করবো। প্রিয় খাগড়াছড়িবাসী আপনারা সবসময় ভালো থাকুন।আপনারা ভালো থাকলে আমরা সবসময় ভালো থাকবো,আপনারা ভালো থাকলে সারাদেশ তথা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ভালো থাকবেন।

পার্বত্য অঞ্চলের মানুষের মত সুন্দর এবং ভালো মনের মানুষ আর কোথাও খুঁজে পাবেন না।পার্বত্য অঞ্চলের মানুষের সহজ সরল মানুষের কাছ থেকে আমরা শিক্ষা গ্রহণ করতে চাই।আজকে খাগড়াছড়ির সৌন্দর্য আমাকে মুগ্ধ করেছে। শান্তি সম্প্রীতির খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা, উন্নয়নের খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা।আজকে আমার জীবন পূর্ণ হয়েছে। প্রকৃতির মাঝে এই সৌন্দর্য আমাকে আজীবন চির কৃতজ্ঞ করে রাখবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বর্ষীয়াণ রাজনীতিক- বীর মুক্তিযোদ্ধা দীপঙ্কর তালুকদার এমপি বলেন, পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রের ঝরঝনানির কারণেই শান্তিচুক্তির প্রত্যাশিত শান্তির পথে বড়ো বাধা। এই অতিক্রমের জন্য বাংলাদেশ সেনাবাহিনী অক্লান্ত ভূমিকা রাখছে। অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত থাকলে সন্ত্রাসের জগত ছোট হয়ে আসবে। এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষ সেটিই আশা করে।

সভাপতির বক্তব্যে কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেন,আমাদের আস্থা এবং বিশ্বাসের ঠিকানা জয় বাংলা।জয় বাংলা হচ্ছে বিজয়ের একমাত্র ঠিকানা।বাংলাদেশের বিজয়ের ঠিকানা জয় বাংলা।বঙ্গবন্ধুর একটি আঙ্গুলের ইশারায় দেশের আজ আমরা স্বাধীন দেশ পেয়েছি।আমরা বিজয়ের ঠিকানা খুঁজে পেয়েছি।১৮কোটির মানুষের ৩৬কোটি হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে মনে ধারণ করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।শেখ হাসিনার সরকারের হাতকে ৩৬কোটি হাত দিয়ে শক্তিশালী করতে হবে।

তিনি আরো বলেন,ইতোমধ্যে বাংলাদেশ শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি, তথ্যপ্রযুক্তি, নারীর ক্ষমতায়নসহ বিভিন্ন খাতে বিশ্বব্যাপী উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। বাংলাদেশ আজ সর্বক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে। উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত থাকলে বাংলাদেশ ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশে পরিণত হবে।

সভায় অন্যান্য বক্তারা বলেন, পাহাড়ের নৈসর্গিক সৌন্দর্য্য দেশের মানুষ উপেভোগ করতে চায়। বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন পাহাড়কে অশান্ত করতে ষড়যন্ত্র-চক্রান্ত হয়েছে। পাহাড়ের অবৈধ অস্ত্র অস্ত্রধারীদের উদ্দেশ্যে মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, অস্ত্র দিয়ে পৃথিবীর কোথাও শান্তি প্রতিষ্ঠা করা যায়নি। অস্ত্র পরিহার করে শান্তির পথে ফিরে আসুন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাহাড়ে যে উন্নয়ন করেছে তা চোখ দিয়ে দেখুন। পার্বত্য এলাকার মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রী সবসময় আন্তরিক। সকলে মিলেমিশে ঐক্যবদ্ধ থেকে সকল ধর্মের মানুষকে নিয়ে পাহড়কে শান্তির স্বর্ণযুগ তৈরী করি। আগামিতে পাহাড়ি-বাঙালি মিলে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আ.লীগকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় আনার আহবান জানান তিনি।

খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সা: সম্পাদক এবং খাগড়াছড়ি পৌরসভার মেয়র নির্মলেন্দু চৌধুরী’র স্বাগত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে সম্পন্ন সভায় খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি-বীর মুক্তিযোদ্ধা রণ বিক্রম ত্রিপুরা, সহ-সভাপতি কল্যাণ মিত্র বড়ুয়া ও মংক্যচিং চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সা: সম্পাদক এম এ জব্বার ও এড. আশুতোষ চাকমা, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দিদারুল আলমসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন।

এরআগে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যদিয়ে প্রতিনিধি সমাবেশের সূচনা হয়। দলে দলে নেতাকর্মীরা মিছিলসহকারে সমাবেশে যোগ দেন।