ক্যাবের চট্টগ্রাম মহানগর কমিটি গঠন

98

দেশের ছাত্র ও তরুণ সমাজের মাঝে নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত, নিত্যপণ্যে মূল্যের উর্ধ্বগতি রোধ, মানসম্মত শিক্ষা, চিকিৎসা, তথ্য প্রযুক্তি, আর্থিক লেনদেন, জীবন ও জীবিকার সাথে যুক্ত সেবাসার্ভিসের অব্যবস্থাপনারোধসহ ভোক্তা অধিকার নিশ্চিতে কর্মরত সেচ্ছাসেবী যুব সংগঠন “ক্যাব যুব গ্রুপের চট্টগ্রাম মহানগর” কমিটি গঠিত হয়েছে। এতে হানিফ নোমান সভাপতি, নিলয় বর্মণ সিনিয়র সহ-সভাপতি ও অংসাহ্লা মার্মা সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন।

চট্টগ্রাম সরকারি সিটি কলেজের স্নাতকত্তোর শেষ বর্ষের ছাত্র আবু হানিফ নোমান সভাপতি, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক শেষ বর্ষের নিলয় বর্মন সিনিয়র সহ-সভাপতি ও পোর্ট সিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ২য় বর্ষের ছাত্র অংসাহ্লা মার্মা সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছে।

ক্যাব চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ে ক্যাব কেন্দ্রিয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইনের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠিত এ অধিবেশনে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ক্যাব চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাধারন সম্পাদক কাজী ইকবাল বাহার ছাবেরী, ক্যাব যুব গ্রুপের চট্টগ্রাম বিভাগীয় সভাপতি চৌধুরী কে এন এম রিয়াদ, ক্যাব ডিপিও শম্পা কে নাহার ও জহুরুল ইসলাম প্রমুখ।

কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন সহ-সভাপতি মোঃ শাকিলুর রহমান, যুগ্ন সম্পাদক আমজাদুল হক আয়েজ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ সুজন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ মেশকাত, প্রচার সম্পাদক এমদাদুল ইসলাম, সহ-প্রচার সম্পাদক রাসেল উদ্দীন, দপ্তর সম্পাদক প্রনব কুমার দাশ, সহ-দপ্তর সম্পাদক মোঃ শাহরিয়ার আলম তৌসিফ, স্বাস্থ্য ও পরিবেশ সম্পাদক মোবাশ্বের হোসেন জামি, সহ-স্বাস্থ্য ও পরিবেশ সম্পাদক শাহরিয়ার নুর শিশির, আইন সহায়তা সম্পাদক মিনা আক্তার, অর্থ সম্পাদক সাজু দাশ, সহ-অর্থ সম্পাদক ইব্রাহিম ফারুক, যুব ও মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সাদিয়া ইয়াসমিন, সহ-যুব ও মহিলা বিষয়ক সম্পাদক উম্মে হাবিবা মীম, তথ্য ও যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ আবুল কাসেম, সহ-তথ্য ও যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার সরকার, গবেষনা ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক তাহমিদুল হাসান, সহ-গবেষনা ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক আবু সাঈদ মোঃ নোমান।

সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে বক্তারা বলেন তরুন জনগোষ্ঠি, আজকে যারা ছাত্র ও যুব, আগামিতে তারাই পরিবার, সমাজ ও রাস্ট্রের গুরুর্ত্বপূর্ন দেশের দায়িত্ব নিবে। কিন্তু তারা যদি সমাজে চলমান অনিয়ম, ভোগান্তি, প্রতারনা ও সমস্যাগুলি সম্পর্কে সম্যক অবহিত না হয়, তাহলে পেশাগত জীবনে অথবা ব্যক্তিগত জীবনে এই সমস্যাগুলি থেকে উত্তরণের জন্য সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে বেগ পেতে হবে। তাই দেশের তরুন জনগোষ্ঠিকে দেশ ও জাতিগঠনমুলক স্বেচ্ছাসেবী সমাজ পরিবর্তন কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত করা জরুরি। তারই অংশ হিসাবে ভোক্তা অধিকার, খাদ্যে ভেজাল বিরোধী অভিযান ও ধুমপানের বিরোধী প্রচারনা কর্মকান্ডে তরুন জনগোষ্ঠিকে সম্পৃক্ত করতে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে ক্যাব যুব গ্রুপ গঠনের উদ্যোগ নেয়া হয়।

বক্তারা আরও বলেন, দেশের স্বাধীনতা আন্দোলন থেকে শুরু করে সবকটি আন্দোলনে তরুন সমাজ নেতৃত্ব প্রদান করলেও ক্ষুদ্র রাজনৈতিক স্বার্থে তরুনদেরকে ব্যবহার করে একটি গোষ্টি নিজেদের ফায়দা হাসিলের কারনে তরুন সমাজ বিভ্রান্ত হয়ে দেশে ও জাতি গঠনমুলক কাজ থেকে বিমুখ হয়ে আছে। সেকারনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও পাড়া মহল্লায় এখন আর সামাজিক-সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড চর্চা ও স্বেচ্ছাসেবী উদ্যোগ গুলি বিকশিত হচ্ছে না। যার কারনে তরুনরা বিপথগামী হচ্ছে। অন্যদিকে কর্পোরেট সংস্কৃতির আগ্রাসনে পড়াশুনা শেষ না করতেই তরুনদের নানা লোভনীয় অফার দিয়ে খন্ডকালীন চাকুরী দেয়া হলেও পরক্ষণে তার জবনিকা ঘটে। পরবর্তীতে এর সর্বশেষ পরিনতি হয় অকালে সম্ভাবনাময় অনেক জীবন নষ্ট হয়।