কুলখানি অনুষ্ঠানে সন্ত্রাসী হামলায় মুক্তিযোদ্ধাসহ আহত ৬

99
গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী পূর্ব থানাধীন ৪৯নং ওয়ার্ড এরশাদ নগর ২ নং ব্লক এলাকায় একটি কুলখানি অনুষ্ঠান চলার সময় সন্ত্রাসী হামলায় বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজ মিয়াসহ ৬ জন আহত হয়েছেন।
গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী পূর্ব থানাধীন ৪৯নং ওয়ার্ড এরশাদ নগর ২ নং ব্লক এলাকায় একটি কুলখানি অনুষ্ঠান চলার সময় সন্ত্রাসী হামলায় বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজ মিয়াসহ ৬ জন আহত হয়েছেন।

শেখ রাজীব হাসান, গাজীপুর থেকে : গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী পূর্ব থানাধীন ৪৯নং ওয়ার্ড এরশাদ নগর ২ নং ব্লক এলাকায় একটি কুলখানি অনুষ্ঠান চলার সময় সন্ত্রাসী হামলায় বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজ মিয়াসহ ৬ জন আহত হয়েছেন।

এ সময় ঘটনাস্থলে একটি বিয়ের বর যাত্রী পক্ষ এই হামলার দেখে ভয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। শুক্রবার বেলা ৩টায় সময় এরশাদ নগর ২নং ব্লক বেরিবাধ এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এঘটনায় মঞ্জু, জাহিদ, ইমন, অপু ও সোহাগসহ অজ্ঞাতনামা বেশ কয়েকজনকে আসামী করে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, এরশাদ নগর এলাকায় ২ নং ব্লক এলাকায় অনুষ্ঠান করার জায়গা না থাকায় রাস্তা ব্লক করে কুলখানির একটি অনুষ্ঠান চলছিল। এ সময় ১ নং আসামি মঞ্জু রিক্সা দিয়ে ওই পথে যাচ্ছিল। ফুলমতি নামের এক মহিলা তাকে জানায়, এখানে অনুষ্ঠান তাই রাস্তা বন্ধ বাবা তুমি পাশের অন্য রাস্তা দিয়ে যাও। এতে ১ নং আসামী ক্ষিপ্ত হয়ে যায়। এর জের ধরে কিছুক্ষণ পর মঞ্জু তার সাথে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে এসে অতর্কিত হামলা চালায়। এতে মুক্তিযোদ্ধা সহ বেশ কয়েকজন আহত হয়।

এলাকাবাসী জানায়, মঞ্জু বাহিনী কর্তৃক অতর্কিত হামলা চালার সময় ২ নং ব্লক এলাকার বাসিন্দারা একত্রিত হয়ে হামলাকারী ২/৩ জনকে আটক করে গণপিটুনি দেয়।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ১নং আসামী মঞ্জু ওয়ার্ড যুবদলের সভাপতি টিভি আনোয়ার এর ভাগিনা এবং পুলিশের সাথে বন্দুক যুদ্ধে নিহত শীর্ষ সন্ত্রাসী কাউসারের ঘনিষ্ঠ সহচর। কিছুদিন আগেও মঞ্জু বাহিনী নিপ্পন গার্মেন্টসের এক কর্মকর্তাকে গেটের সামনে থেকে তুলে নিয়ে আসে। এ সময় গার্মেন্টসের তিন শতাধিক শ্রমিক ওই কর্মকর্তাকে উদ্ধারের জন্য গিয়েও তাদের অস্ত্র দেখে ভয়ে কিছু বলতে পারেনি। পরে সাংবাদিক ও প্রশাসনের কথা শুনে স্থানীয় কয়েকজন নেতার সুপারিশে ওই কর্মকর্তাকে ছেড়ে দেয় মুঞ্জু। তার নামে রাসেল হত্যাসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

এক সময়কার শীর্ষ সন্ত্রাসী খ্যাত মঞ্জু প্রশাসনের ভয়ে বিদেশ পাড়ি দিয়ে গা ঢাকা দেয়। দীর্ঘদিন বিদেশ থাকার পরে এখন আবার দেশে ফিরে সন্ত্রাসী সাম্রাজ্য তৈরির পাঁয়তারা চালাচ্ছে। এলাকায় খোলামেলাভাবে অস্ত্র-শস্ত্রসহ প্রায়ই মহড়া দিতে দেখা যায় তাকে। এতে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন স্থানীয়রা। তারা জানান, প্রশাসনের হস্তক্ষেপে দীর্ঘদিন এলাকার সন্ত্রাসমুক্ত থাকলেও মঞ্জুর আগমনে আবারো সন্ত্রাসী সাম্রাজ্য কায়েম হয়েছে। আমরা এর প্রতিকার চাই।

টংগী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ জাভেদ মাসুদ বলেন, এ ব্যাপারে থানায় লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে আমাদের অভিযান চলমান রয়েছে।