কিশোরী গণধর্ষণের মামলায় খাগড়াছড়িতে দুজনের যাবজ্জীবন

117
কিশোরী গণধর্ষণের মামলায় খাগড়াছড়িতে দুজনের যাবজ্জীবন
কিশোরী গণধর্ষণের মামলায় খাগড়াছড়িতে দুজনের যাবজ্জীবন

বিপ্লব তালুকদার, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি : খাগড়াছড়িতে ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরীকে গণধর্ষণের মামলায় দুজনকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন বিচারিক আদালত। একই সাথে তাদের ১০ লক্ষ টাকা করে অর্থদন্ড দেওয়া হয়। উক্ত অর্থ ভিকটিমের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ বাবদ দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয় রায়ে।

বৃহস্পতিবার, ২৪ মার্চ দুপুরে খাগড়াছড়ির নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মুহাং আবু তাহের এই রায় ঘোষণা করেন।

সাজাপ্রাপ্ত আসামীরা হলেন- খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলার কাঠালবাগান এলাকার হানিফ হাওলাদারের ছেলে রেজাউল হাওলাদার (৩৭) ও একই এলাকার মৃত জামাল মিয়ার ছেলে মোঃ সাবু মিয়া (৩৫)।

রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন আসামীরা।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ১৭ এপ্রিল খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় আসামী সাবু মিয়ার বাগানবাড়ীতে সাবু মিয়া এবং রেজাউল ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরীর হাত-মুখ বেঁধে জোরপূর্বক পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

ঘটনার কিছুদিন পর ভিকটিম লজ্জা ও অপমান সইতে না পেরে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। পরবর্তী সময়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এই ঘটনায় ভিকটিমের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের পর যুক্তি তর্ক উপস্থাপন শেষে আদালত দুজনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের রায় দেন। একই সাথে প্রত্যেককে ১০ লক্ষ টাকা করে অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। জরিমানাকৃত অর্থ নিহত ভিকটিমের পরিবারকে দেয়ারও নির্দেশ দেয়া হয়।

এই রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) এডভোকেট বিধান কানুনগো। তিনি বলেন, এমন রায় সমাজে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। অপরাধীরা এমন অপরাধে আর সাহস পাবে না। প্রতিষ্ঠিত হবে আইনের শাসন।