ওসমানী মেডিকেলে বন্যার পানি

82

কলেজের অধ্যক্ষ ড. মঈনুল হক বলেন, আবাসিক হল ও কলেজে পানি ঢুকে পড়ায় আপাতত কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। স্থগিত করা হয়েছে ক্লাস ও পরীক্ষা। শিক্ষার্থীরা এরই মধ্যে হল ছাড়তে শুরু করছে। বন্যার পানি ঢুকে পড়েছে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন রোগীরা।

চিকিৎসকরা বলছেন, বন্যার পানি ও বিদ্যুৎ না থাকায় সেবা বিঘ্নিত হচ্ছে। বন্ধ রয়েছে রোগ নির্ণয় পরীক্ষা। বন্যা পরিস্থিতির কারণে মেডিক্যাল কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কলেজের অধ্যক্ষ ড. মঈনুল হক বলেন, আবাসিক হল ও কলেজে পানি ঢুকে পড়ায় আপাতত কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। স্থগিত করা হয়েছে ক্লাস ও পরীক্ষা। শিক্ষার্থীরা এরই মধ্যে হল ছাড়তে শুরু করছে।

ইন্টার্ন চিকিৎসক ইবনে হাসান রাব্বী বলেন, হাসপাতালে পানি ঢুকে পড়ায় চিকিৎসাসেবা বিঘ্নিত হচ্ছে। বিদ্যুৎ না থাকায় রোগ নির্ণয়ের পরীক্ষা বন্ধ আছে। সিলেটে গত বুধবার বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। বৃহস্পতিবার তা ভয়াবহ রূপ নেয়। এদিন বিকেল থেকে দ্রুত বাড়তে শুরু করে পানি। তলিয়ে যায় সিলেট নগরের বেশির ভাগ এলাকা।

বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে জেলার কোম্পানীগঞ্জ ও গোয়াইনঘাট উপজেলা। সড়কসহ এই দুই উপজেলার প্রায় পুরোটাই পানিতে তলিয়ে গেছে। সিলেট-কোম্পানীগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কও পানির নিচে।

বন্যার পানির কারণে শুক্রবার বিকেলে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সব ধরনের বিমান চলাচল সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করা হয়। শনিবার দুপুরে সিলেট রেলস্টেশনও বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এতে সারা দেশের সঙ্গে আকাশ ও রেলপথে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে সিলেট।