Home খবর অর্থনীতি এশীয় দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কম ঋণ বাংলাদেশের : তাজুল ইসলাম

এশীয় দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কম ঋণ বাংলাদেশের : তাজুল ইসলাম

এশীয় দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কম ঋণ বাংলাদেশের : তাজুল ইসলাম
এশীয় দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কম ঋণ বাংলাদেশের : তাজুল ইসলাম

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, এশীয় দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কম ঋণ বাংলাদেশের। বাংলাদেশ কখনো ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ হয়নি। সেজন্য বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশকে আরো বেশি ঋণ দিতে চায়। অর্থায়ন সেই খাতে নেওয়া হবে যেখানে বিনিয়োগের ফলে অর্থনীতির গ্রোথ হবে।

মন্ত্রণালয়ের নিজ দপ্তরে বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টরের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদলের সাথে বৈঠক শেষে মন্ত্রী সাংবাদিকদের একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাংক তো আসলে অর্থলগ্নিকারী প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশের সামগ্রিক অবস্থা অত্যন্ত স্থিতিশীল এ ঊর্ধ্বমুখী। বাংলাদেশ এখন উদীয়মান শক্তিশালী দেশ হিসাবে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থা বর্তমানে অনেক ভালো।

বিশ্বব্যাংক প্রতিনিধিদলের সাথে সাক্ষাতের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, ঢাকাসহ সকল শহরের পাশাপাশি গ্রামীণ উন্নয়নের ব্যাপারে পরিকল্পনা ও তা বাস্তবায়ন বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। এছাড়া সেনিটেশন, ওয়াটার সাপ্লাই, গ্রামীণ কমিউনিকেশন ডেভলপমেন্ট, ব্রিজ, রাস্তাঘাট নিয়েও আলোচনা হয়েছে। তারা সম্ভব্যভাবে সবক্ষেত্র অর্থায়নের কথা বলেছে। আজকের মিটিংয়ের প্রেক্ষাপটে তারা তাদের হেডকোয়ার্টারে কিছু প্রোপজাল পাঠাবে।

বর্তমানে তাদের ২ দশমিক ৮৭ বিলিয়ন ডলারের মতো অর্থায়নের প্রকল্প কাজ চলমান আছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ইতোমধ্যে একটি ৩০০ মিলিয়ন ডলারের এবং আরেকটি ৫০০ মিলিয়ন ডলারের প্রজেক্ট অনুমোদন দেয়া হয়েছে। তারা প্রায় একশো বিলিয়ন ডলার বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগের জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তাদের অর্থায়নে চলমান প্রকল্পের বিষয়ে তারা অনেক ইতিবাচক বক্তব্য রেখেছে।

মন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতু এখন উদ্বোধনের অপেক্ষায়। বিশ্বব্যাংক নিজেই এখন স্বীকার করে পদ্মাসেতু নির্মাণের ফলে বাংলাদেশের সক্ষমতা সারা বিশ্বকে দেখিয়ে দিয়েছে।

এসময় স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরীসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Exit mobile version