উইল স্মিথের স্ত্রীকে নিয়ে রসিকতা : নায়কের চড় খেলেন অস্কার উপস্থাপক

214
৯৪তম অস্কার আসরে হলিউড অভিনেতা উইল স্মিথ অস্কার উপস্থাপকের গালে সজোড়ে চপেটাঘাত করে হইচই ফেলে দিয়েছেন।
৯৪তম অস্কার আসরে হলিউড অভিনেতা উইল স্মিথ অস্কার উপস্থাপকের গালে সজোড়ে চপেটাঘাত করে হইচই ফেলে দিয়েছেন।

বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ চলচ্চিত্র পুরস্কার আসর অস্কারের মঞ্চে প্রতি বছরই নানা আলোচিত ঘটনার জন্ম নেয়। এবার ৯৪তম অস্কার আসরে হলিউড অভিনেতা উইল স্মিথ অস্কার উপস্থাপকের গালে সজোড়ে চপেটাঘাত করে হইচই ফেলে দিয়েছেন।

করোনা মহামারির কারণে তিন বছর বন্ধ থাকার পর অবশেষে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে ডলবি থিয়েটারে স্থানীয় সময় ২৭ মার্চ রাতে বসে ৯৪তম অস্কার আসর।

জমকালো এই আয়োজনে অবিশ্বাস্য কান্ড ঘটিয়ে খবরের শিরোনাম হয়েছেন ‘মেন ইন ব্ল্যাক’খ্যাত জনপ্রিয় হলিউড অভিনেতা উইল স্মিথ। মঞ্চে উপস্থাপনারত অবস্থায় উপস্থাপক ক্রিস রকের গালে চড় মারেন এই অভিনেতা। তখন দর্শক সারিতে বসা ছিলেন স্মিথ। উপস্থাপক রসিকতা করছিলেন মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে। তার রসিকতা শুনে স্মিথও হাসছিলেন। হঠাৎ স্মিথের স্ত্রীকে নিয়ে রসিকতা করেন উপস্থাপক। বিষয়টি হজম করতে পারেননি নায়ক। দর্শক সারি থেকে সোজা মঞ্চে উঠে যান নায়ক। এরপর সজোড়ে উপস্থাপকের গালে চড় বসিয়ে দেন। চড় মেরেই আবার দর্শক সারিতে নিজের আসনে গিয়ে বসে পড়েন তিনি।

ঘটনার আকস্মিকতায় ডলবি থিয়েটারে উপস্থিত সবাই প্রচণ্ড বিস্মিত হন। কেউ কেউ আবার মনে করেন, সম্ভবত এটা সাজানো কোনো ঘটনা যা চমক সৃষ্টির জন্য ঘটানো হয়েছে। কিছুক্ষণ পরই অবশ্য সবাই বুঝতে পারেন, সত্যি সত্যিই অস্কার উপস্থাপককে চড় মেরেছেন উইল স্মিথ। কারণ তিনি চড় মেরে নিজের চেয়ারে বসে পড়ার পর উপস্থাপক ক্রিস রককে গালিগালাজ করতে থাকেন। এসময় তাকে রাগে ফুঁসছিলেন স্মিথ।

পরে সেই চড় মারার ভিডিও ফাঁস হয় অনলাইনে। বলাই বাহুল্য, মুহূর্তেল মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায় তা। ভিডিওতে দেখা যায়, অস্কার আসরে হাজির অতিথিদের নিয়ে রসিকতা করছেন উপস্থাপক ক্রিস রক। উপস্থিত তারকাদের নিয়ে তিনি মজার মজার মন্তব্য করছেন আর সবাই হাসিতে ফেটে পড়ছেন।

এক পর্যায়ে উইল স্মিথের স্ত্রী জেডা স্মিথকে নিয়ে রসিকতা করে উপস্থাপক বলেন, ‘জি আই জেন’ ছবির পরবর্তী কিস্তিতে অভিনয় করবেন জেডা স্মিথ। এটা শোনার সঙ্গে সঙ্গে উইল স্মিথের মাথায় রক্ত চড়ে যায়।

মঞ্চে উঠে গিয়ে উপস্থাপক ক্রিস রককে প্রচন্ড জোরে চড় মারেন তিনি। কিন্তু কেন? ‘জি আই জেন’ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন হলিউড অভিনেত্রী ডেমি মুর। সেই ছবিতে ন্যাড়া ছিলেন নায়িকা। উইল স্মিথের স্ত্রী ডেজা স্মিথের মাথায়ও চুল নেই। অ্যালোপেশিয়া রোগের কারণে জেডা স্মিথের চুল পড়ে গেছে। অসুস্থ স্ত্রীকে নিয়ে রসিকতা মেনে নিতে পারেননি বলেই এই কান্ড ঘটিয়েছেন উইল স্মিথ।

ঘটনার পরে অবশ্য উইল স্মিথ ‘কিং রিচার্ড’ ছবির জন্য সেরা অভিনেতা হিসেবে অস্কার পুরস্কার অর্জন করেন। অশ্রুসজল নয়নে সেই পুরস্কার গ্রহণ করেন তিনি।

এবারের ৯৪তম অস্কার আসরে সেরা চলচ্চিত্র নির্বাচিত হয়েছে ‘কোডা’। সেরা অভিনেতা ও অভিনেত্রী পুরস্কার জিতেছেন যথাক্রমে উইল স্মিথ এবং জেসিকা চ্যাস্টেইন। সেরা পরিচালকের পুরস্কার ঘরে তুলেছেন জেন ক্যাম্পিয়ন।

এক নজরে ৯৪তম অস্কার আসরের পুরস্কার তালিকা :

সেরা চলচ্চিত্র
কোডা

সেরা অভিনেতা
উইল স্মিথ (কিং রিচার্ড)

সেরা অভিনেত্রী
জেসিকা চ্যাস্টেইন (দ্য আইস অব টেমি ফেই)

সেরা পার্শ্ব-অভিনেতা
ট্রয় কটসার (কোডা)

সেরা পার্শ্ব-অভিনেত্রী
আরিয়ানা ডিবোস (ওয়েস্ট সাইড স্টোরি)

সেরা পরিচালক
জেন ক্যাম্পিয়ন (দ্য পাওয়ার অব দ্য ডগ)

সেরা মৌলিক চিত্রনাট্য
বেলফাস্ট (কেনেথ ব্রানা)

সেরা অ্যাডাপ্টেড চিত্রনাট্য
কোডা (শন হেডার)

সেরা চিত্রগ্রহণ
ডুন (গ্রেগ ফ্রেজার)

সেরা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র
ড্রাইভ মাই কার (জাপান)

সেরা অ্যানিমেটেড চলচ্চিত্র
এনক্যান্টো (ওয়াল্ট ডিজনি অ্যানিমেশন স্টুডিওস)

সম্মানসূচক অস্কার
অভিনেতা স্যামুয়েল এল. জ্যাকসন
অভিনেত্রী ও নির্মাতা এলায়েন মে
নরওয়ের অভিনেত্রী ও নির্মাতা লিভ আলম্যান

জিন হার্শোল্ট হিউম্যানিটারিয়ান অ্যাওয়ার্ড
মার্কিন অভিনেতা ড্যানি গ্লোভার

সেরা প্রামাণ্যচিত্র
সামার অব সৌল (অর, হোয়েন দ্য রেভোল্যুশন কুড নট বি টেলিভাইসড)

সেরা পোশাক পরিকল্পনা
ক্রুয়েলা (জেনি বেভান)

সেরা ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস
ডুন (পল ল্যাম্বার্ট, ট্রিস্টান মাইলস, ব্রায়ান কনোর, জার্ড নেফজার)

সেরা মৌলিক গান
নো টাইম টু ডাই (বিলি আইলিশ ও ফিনিয়াস ও’কনেল, ছবি: নো টাইম টু ডাই)

সেরা মৌলিক আবহ সংগীত
ডুন (হ্যান্স জিমার)

সেরা শিল্প নির্দেশনা
ডুন (প্যাট্রিস ভেরমেট, সুজানা সিপোস)

সেরা শব্দ
ডুন (ম্যাক রুথ, মার্ক ম্যাঞ্জিনি, থিও গ্রিন, ডাগ হেম্ফিল, রন বার্টলেট)

সেরা রূপসজ্জা ও চুলসজ্জা
দ্য আইস অব টেমি ফেই (লিন্ডা ডাউডস, স্টেফানি ইনগ্রাম, জাস্টিন র্যালে)

সেরা চলচ্চিত্র সম্পাদনা
ডুন (জো ওয়াকার)

সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র
দ্য লং গুডবাই (আনেল কারিয়া, রিজ আহমেদ)

সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্র
দ্য কুইন অব বাস্কেটবল (বেন প্রাউডফুট)

সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য অ্যানিমেটেড ছবি
দ্য উইন্ডশিল্ড ওয়াইপার (আলবার্তো মিয়েলগো, লিও সানচেজ)