মানিকগঞ্জে পরকীয়ার বলী অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী

98
মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় মালেকা আক্তার নামে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা পিটিয়ে স্ত্রীকে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ফেরদৌস মিয়ার বিরুদ্ধে।
মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় মালেকা আক্তার নামে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা পিটিয়ে স্ত্রীকে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ফেরদৌস মিয়ার বিরুদ্ধে।

মাহমুদুল হাসান মনি, সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ) থেকে : মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় মালেকা আক্তার নামে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা পিটিয়ে স্ত্রীকে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ফেরদৌস মিয়ার বিরুদ্ধে।

গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলার বরাইদ ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বুধবার সাটুরিয়া থানায় নিহত মালেকার মা জীবননেছা বাদী হয়ে সাটুরিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন।

নিহত অন্তঃসত্ত্বা নারী মালেকা সাটুরিয়া উপজেলার গোপালপুর গ্রামের মোঃ জব্বার আলীর মেয়ে এবং একই গ্রামের ফেরদৌস হোসেনের স্ত্রী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মালেকা ও ফেরদৌসের ৭ বছর আগে বিয়ে হয়। পরবর্তী সময়ে মালেকার স্বামী তিল্লিচর এলাকার পিংকি নামে এক মেয়ের সাথে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে পরকীয়া প্রেমিকাকে বিয়েও করেন।

ফেরদৌস দ্বিতীয় বিয়ে করার পর প্রথম স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন করত। এক পর্যায়ে স্থানীয়ভাবে আপোস মীমাংসা করে প্রথম স্ত্রীর কাছ থেকে সাড়ে ৪ লক্ষ টাকা নিয়ে দ্বিতীয় স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার আশ্বাস দেয়। ফেরদৌস সাড়ে ৪ লক্ষ টাকা নেওয়ার পরও দ্বিতীয় স্ত্রীকে তালাক না দেওয়ায় প্রথম স্ত্রী মালেকার সাথে প্রতিনিয়ত ঝগড়া হতে থাকে।

মঙ্গলবার রাতে মালেকা ও ফেরদৌসের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ফেরদৌস ৫ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে পেটের মধ্যে লাথি ও গলায় মুখে আঘাত করে। একপর্যায়ে মালেকা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লে মালেকার স্বামী লাশ ফেলে রাতেই পালিয়ে যায়।

মালেকার বাবা মো. জব্বার আলী জানান, তার মেয়ের জামাই ফেরদৌস হোসেন তিল্লিচর এলাকার পিংকি নামে এক মেয়ের সাথে পরকীয়া ছিল। এ পরকীয়া নিয়ে মেয়ে মালেকার সাথে জামাই ফেরদৌসের সাথে প্রতিদিনই ঝগড়া হতো। দুইমাস আগে পিংকিকে ছেড়ে দেওয়ার কথা বলে সাড়ে ৪ লক্ষ টাকা যৌতুক নেয় জামাই। তিনি বলেন, পিংকির পরামর্শে ফেরদৌস আমার মেয়েকে হত্যা করেছে।

সাটুরিয়া থানার ওসি মুহাম্মদ আশরাফুল আলম বলেন, গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মানিকগঞ্জ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় নিহত মালেকার মা জীবননেছা বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করেছেন।